Saturday, July 20, 2024
spot_img
Homeস্বাস্থ্যকাহননারী স্বাস্থ্যগর্ভাবস্থায় রসুন কতটা নিরাপদ?

গর্ভাবস্থায় রসুন কতটা নিরাপদ?

-অনন্যা চৈতী
সৃষ্টির শুরু থেকে রান্নার অন্যতম মসলা হিসেবে রসুনের ভূমিকা অনস্বীকার্য। প্রাচীন মিসরে রান্না ও চিকিৎসার অন্যতম উপাদান হিসেবে ব্যবহৃত হতো এই রসুন।
এটি সাধারণত সর্দি-জ্বর প্রতিরোধে করতে এবং অবরুদ্ধ ধমনিগুলো পরিষ্কার করে হৃদরোগ প্রতিরোধে সহায়তা করে বলেই আমরা জানি। শুধু ঠাণ্ডাজনিত সমস্যায় নয়, বর্তমানে গর্ভাবস্থায়ও রসুন অনেক উপকারী ভূমিকা পালন করে বলে জানা গেছে। ভারতীয় ওয়েবসাইট টাইমস অব ইন্ডিয়া প্রকাশ করেছে এ-সংক্রান্ত একটি প্রতিবেদন।

গর্ভাবস্থায় রসুন খাওয়ার উপকারিতা
গর্ভাবস্থা একজন নারীর জীবনের বিশেষ একটি মুহূর্ত। নারীর ভেতরে বড় হচ্ছে একটি নতুন জীবন। তাই এ সময় বাড়তি সাবধানতা জরুরি।
# রসুন একটি প্রাকৃতিক অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল উপাদান। এটি শরীরে পুষ্টি, ভিটামিন ও খনিজ সরবরাহ করে। এটি শরীরে রক্তপ্রবাহকে স্বাভাবিক করে তোলে এবং হরমোনের কার্যকারিতায় ভারসাম্য রক্ষা করে। রসুন রোগ প্রতিরোধক হিসেবেও বিভিন্ন জীবাণু ও ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াই করে থাকে।
# গর্ভাবস্থায় অনেকেরই উচ্চ রক্তচাপের সমস্যা দেখা দেয়। এ ক্ষেত্রে রসুন খুব উপকারী ভূমিকা পালন করে থাকে।
# গর্ভাবস্থায় রসুন খাওয়ার কারণে হজমশক্তি বাড়ে এবং কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা দূর হয়। পাশাপাশি পরিপাকতন্ত্রের নানা জটিলতাও দূর হয়।
# সাধারণ সময় তো বটেই, গর্ভাবস্থায়ও অনেকের মুখে ব্রণ দেখা যায়। মুখের ব্রণের দাগ দূর করতে রসুন ম্যাজিকের মতো কাজ করে।
# গর্ভাকালীন অনেকেরই ক্ষুধামান্দ্য ভাব দেখা দেয়। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, রসুন খেলে পরিত্রাণ মিলবে এই সমস্যা থেকে।
# চুল ঝরে পড়ছে, এমন অভিযোগ পাওয়া যাবে প্রায় সব নারীর কাছ থেকেই। আর গর্ভকালীন এটি তো অন্যতম একটি সমস্যা। আমরা সবাই চুলের জন্য পেঁয়াজের বিস্ময়কর উপকারী গুণ সম্পর্কে জানি। তবে এর ভাই রসুনও তার চেয়ে কোনো অংশে কম নয়। চুল পড়া রোধ করতে রসুনের রস মাথার স্ক্যাল্পে ব্যবহার করা যায়। আবার রসুনের রস মিশ্রিত নারিকেল তেল গরম করে চুলে দিলেও চুল পড়া কমবে।

গর্ভাবস্থায় রসুন খেলে কী ঘটে?
রসুন একটি প্রাকৃতিক প্রতিষেধক। সে ক্ষেত্রে গর্ভাবস্থার প্রথম তিন মাস রসুন খাওয়া নিরাপদ। তবে শেষের তিন মাস খাবারের তালিকায় রসুন অন্তর্ভুক্ত করার সময় অবশ্যই সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে। কারণ, এই সময়ে অতিরিক্ত রসুন খাওয়া রক্তচাপের স্তরকে কমিয়ে দিতে পারে এবং রক্তকে পাতলা করতে পারে। এ ছাড়া রসুন খাওয়ার কারণে বমির সমস্যা বেড়ে যেতে পারে। যাদের অ্যালার্জির সমস্যা রয়েছে, তাদের রসুন খাওয়া থেকে বিরত থাকাই শ্রেয়। সুতরাং, শেষের এই তিন মাস রসুন গ্রহণ সম্পর্কে একজন গর্ভবতী নারী তার ডাক্তারের সঙ্গে পরামর্শ করে নিতে পারেন।

- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments