Thursday, May 30, 2024
spot_img
Homeঅন্যান্যশিল্প—সাহিত্য—সংগীতঈদে প্রকাশ পেল মা ও মেয়ের গান

ঈদে প্রকাশ পেল মা ও মেয়ের গান

সাতকাহন২৪.কম ডেস্ক

প্রতি বছর ঈদ উৎসবের সময় দেশের সাংস্কৃতিক অঙ্গন মুখরিত হয়ে ওঠে। এরই ধারাবাহিকতায় এবারের ঈদের উল্লেখযোগ্য দুটি সংযোজন দেশবরেণ্য কন্ঠশিল্পী সাবিনা ইয়াসমিনের গাওয়া ‘তুমি ছুঁয়ে দিলে’ এবং তাঁর কন্যা শ্রোতাপ্রিয় কন্ঠশিল্পী বাঁধনের গাওয়া ‘এসো মেঘের কোলে’ শিরোনামের দুটি আধুনিক গানের অবমুক্তি।

পবিত্র ঈদুল ফিতরের দিন, ২২ এপ্রিল, টি এইচ কে মিউজিক ইউটিউব চ্যানেল থেকে অবমুক্ত হয়েছে দেশের কিংবদন্তীখ্যাত কন্ঠশিল্পী সাবিনা ইয়াসমিনের একটি গান ‘তুমি ছুঁয়ে দিলে’। গানটি তিনি ডুয়েট গেয়েছেন তানিম হায়াত খান রাজিতের সঙ্গে। শিল্পী তানিম হায়াত খান রাজিত এই গানটির সুরকারও।

গানের গীতিকার সুপ্রিয়া বিশ্বাস। এই গানটির সঙ্গীতায়োজন ও মিক্স-মাস্টারিংয়ে ছিলেন সজীব দাস। মিউজিক ভিডিও আকারে এটি একটি কাহিনীচিত্রসহ প্রকাশিত হয়। এর পরিচালনা করেছেন সাফিকা নাসরিন মিমি।

বরেণ্য সংগীত শিল্পী সাবিনা ইয়াসমিন সাতকাহন২৪.কমকে জানান, ‘তুমি ছুঁয়ে দিলে’ রোম্যান্টিক ধারার গান। গীতিকার সুপ্রিয়া বিশ্বাস খুব সুন্দর করে গানটির কথাগুলো লিখেছেন। আর সুরকার তানিম হায়াত খান রাজিতে অসম্ভব সুন্দর করে সুর করেছেন। আমার খুব পছন্দ হয়েছে। সব মিলিয়ে সুন্দর একটি মিষ্টি রোম্যান্টিক গান হয়েছে এটি। আশা করি, শ্রোতাদের ভালো লাগবে।

একই দিনে দীপনস প্ল্যানেট ইউটিউব চ্যানেল থেকে অবমুক্ত হলো, সাবিনা ইয়াসমিনের কন্যা শ্রোতাপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী বাঁধনের গাওয়া গান ‘এসো মেঘের কোলে’। বাঁধনের ভালো নাম ইয়াসমিন ফায়রুজ। ‘এসো মেঘের কোলে’ গানটি লিখেছেন কৃষ্ণ কান্ত বিশ্বাস; সুর করেছেন বিশিষ্ট সেতার শিল্পী রীনাত ফওজিয়া। সঙ্গীতায়োজন ও মিক্স-মাস্টারিংয়ে ছিলেন দীপন সরকার।

সেতার শিল্পী ও সুরকার রিনাত ফওজিয়া।
সেতার শিল্পী ও সুরকার রিনাত ফওজিয়া।

সংগীত জীবন সম্পর্কে সাতকাহন২৪.কম- কে বাঁধন জানান, ‘এসো মেঘের কোলে’ গানটির সুর করেছেন, রিনাত ফওজিয়া। তিনি অসম্ভব সুন্দর করে, যত্ন নিয়ে সুরটি করেছেন। গানটি গাইতে খুব ভালো লেগেছে। আমি সংগীত পরিবারের মেয়ে। সংগীত রক্তে মিশে রয়েছে। আমি বিশিষ্ট উচ্চাঙ্গ সংগীত শিল্পী অনিল কুমার সাহার কাছে উচ্চাঙ্গ সংগীত শিখেছি। আমার প্রথম অ্যালবাম প্রকাশিত হয় ২০০৬ সালে। এর নাম ছিল, ‘প্রতিচ্ছবি’। ইমপ্রেস অডিওভিশন থেকে প্রকাশ পায় এটি। এটি ছিল মা ও আমার যৌথ অ্যালবাম। এরপর ২০০৯ সালে ‘ফাল্গুণ হাওয়া’ নামে একটি একক অ্যালবাম প্রকাশিত হয়। থার্ড অ্যালবাম ছিল ‘রাগ-অনুরাগ’। এরপর ২০১৭ সালে মায়ের সঙ্গে আরেকটি অ্যালবামে কাজ করি। আর এখন তো ইউটিউবের দিকে ঝুঁকছে মানুষ। ইউটিউবে নিয়মিত গান প্রকাশ হচ্ছে আমার। এ ছাড়া বিভিন্ন টেলিভিশন চ্যানেলে গান করছি। এভাবেই সঙ্গীতের সঙ্গে যুক্ত হয়ে কাজ করে যাচ্ছি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments